রাজধানীর উত্তরায় রবীন্দ্র স্মরণীতে সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে জনসভা

গত ১২মে ২০১৭ তারিখে রাজধানীর উত্তরায় সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে এক জনসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উত্তরার রবীন্দ্র সরণি চত্বরে অরাজনৈতিক আন্দোলন হেযবুত তওহীদের উদ্যোগে এ জনসভা অনুষ্ঠিত হয়। দৈনিক বজ্রশক্তির প্রকাশক ও সম্পাদক এস.এম. সামসুল হুদার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসাবে বক্তব্য রাখেন হেযবুত তওহীদের এমাম হোসাইন মোহাম্মদ সেলিম।
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, বর্তমান সময় অত্যন্ত ভয়াবহ। বিকৃত ধর্মীয় আদর্শ থেকে উদ্ভূত জঙ্গিবাদ দ্বারা বিশ্ব আক্রান্ত। বিশেষ করে মুসলিম দেশগুলোর জন্য ভয়াবহ হুমকি হয়ে দেখা দিয়েছে এই জঙ্গিবাদ। বাংলাদেশও এ হুমকির বাইরে নয়। দেশকে জঙ্গিবাদের হুমকি মোকাবেলায় ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান তারা।

অনুষ্ঠানে ভিডিও

 

হেযবুত তওহীদের এমাম হোসাইন মোহাম্মদ সেলিম তার বক্তব্যে বলেন, জঙ্গিবাদ নির্মূল করতে বিশ্বময় শক্তি প্রয়োগের পন্থা বেছে নেওয়া হয়েছে। কিন্তু এখন সকলেই স্বীকার করছেন যে, শক্তি প্রয়োগের পাশাপাশি ধর্মীয় দলিল ভিত্তিক নির্ভুল আদর্শ দিয়ে জঙ্গিবাদ যে ভুল পথ তা প্রমাণ করতে হবে। অন্যথায় ধর্মব্যবসায়ীরা ধর্মবিশ্বাসী সাধারণ মানুষের ঈমানকে ভুল খাতে প্রবাহিত করে দেশে সন্ত্রাসের বিস্তার ঘটাতেই থাকবে। ফলে আমাদের এই প্রিয় মাতৃভূমিকেও ইরাক-সিরিয়ার মতো করুণ পরিণতি বরণ করতে হতে পারে। এ জন্য প্রয়োজন একটি সঠিক আদর্শের। এই সঠিক আদর্শটি হেযবুত তওহীদের কাছে আছে বলেও তার বক্তৃতায় উঠে আসে।
তিনি বলেন, এই ভয়ঙ্কর সঙ্কট থেকে রক্ষা করতে পারেন একমাত্র মহান আল্লাহ। এই সঙ্কটে পড়ে ইরাক, সিরিয়া, আফগানিস্তান, লিবিয়া ইত্যাদি দেশ ধ্বংস হয়ে গেছে, এখন যদি বাংলাদেশকে এই সঙ্কট থেকে বাঁচাতে হয় তবে একমাত্র উপায় হলো আমাদেরকে মো’মেন হওয়া। কারণ মো’মেনের সাথে আল্লাহর ওয়াদা, তিনি মো’মেনদের রক্ষা করবেন, তিনি মো’মেনদের অভিভাবক। আর এই মো’মেন হতে হলে যাবতীয় অন্যায়ের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। অন্যায় যে-ই করুক তার বিরুদ্ধে দাঁড়াতে হবে। তিনি বলেন, বর্তমানে ইসলামের নামে আমাদের সমাজে বহু অনৈসলামিক কার্যক্রম চলছে। এগুলো আল্লাহ রসুলের ইসলাম নয়। তিনি প্রকৃত ইসলাম ও বিকৃত ইসলামের রূপ তুলে ধরে বলেন, প্রকৃত ইসলাম মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করেছিল, শত্রুকে ভাই বানিয়েছিল, আরবের অবজ্ঞাত, উপেক্ষিত, অশিক্ষিত একটা জাতিকে শ্রেষ্ঠ জাতি, শিক্ষকের জাতিতে পরিণত করেছিল। আর বর্তমানের বিকৃত ইসলাম মানুষের মাঝে বিভাজন সৃষ্টি করে, একজাতিকে হাজার হাজার ফেরকা, মাজহাব, দল-উপদলে ভাগ করে পরস্পর শত্রুতে পরিণত করে।
দেশবাসীর প্রতি তিনি ঐক্যবদ্ধ হবার আহ্বান করে বলেন, ধর্মব্যবসায়ীদের দ্বারা প্রচারিত ধর্মের অপব্যাখ্যা থেকে বের হয়ে আমাদের ধর্মের প্রকৃত চেতনা দ্বারা জাতিকে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। তিনি সরকার, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ সাধারণ জনগণের উদ্দেশ্যে প্রস্তাবনা পেশ করেন এবং হেযবুত তওহীদের মূলনীতিগুলো তুলে ধরেন। সকলের জন্য আল্লহর দরবারে দোয়া করার মাধ্যমে তার বক্তব্য তিনি শেষ করেন।

জনপ্রিয় পোস্টসমূহ