নওগাঁয় দৈনিক দেশেরপত্রের জেলা কার্যালয় উদ্বোধন

নওগাঁ জেলার নওজোয়ান মাঠ মুক্তির মোড়ে দৈনিক দেশেরপত্রের জেলা কার্যালয়ের শুভ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত (বাঁ থেকে) দেশেরপত্রের রাজশাহী বিভাগীয় ব্যুরো প্রধান মো: মনিরুয্যামান মনির, জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক এসএম জহুরুল ইসলাম, নওগাঁ ৫ নং আসনের সংসদ সদস্য মোঃ আব্দুল মালেক, দেশেরপত্রের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক রুফায়দাহ পন্নী, জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক শাকিল আহম্মেদ বাদল, মুক্তিযোদ্ধা এ বি এম ফারুক।
১৫ এপ্রিল ২০১৪ নওগাঁ জেলার নওজোয়ান মাঠ মুক্তির মোড়ে দৈনিক দেশেরপত্রের জেলা কার্যালয়ের শুভ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত (বাঁ থেকে) দেশেরপত্রের রাজশাহী বিভাগীয় ব্যুরো প্রধান মো: মনিরুয্যামান মনির, জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক এসএম জহুরুল ইসলাম, নওগাঁ ৫ নং আসনের সংসদ সদস্য মোঃ আব্দুল মালেক, দেশেরপত্রের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক রুফায়দাহ পন্নী, জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক শাকিল আহম্মেদ বাদল, মুক্তিযোদ্ধা এ বি এম ফারুক।

গতকাল মঙ্গলবার সকালে নওগাঁ জেলার নওজোয়ান মাঠ মুক্তির মোড়ে দৈনিক দেশেরপত্রের জেলা কার্যালয়ের শুভ উদ্বোধন করা হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতেই যৌথভাবে ফিতা কেটে ব্যুরো কার্যালয় উদ্বোধন করেন নওগাঁ জেলার ৫ নং আসনের সংসদ সদস্য মোঃ আব্দুল মালেক ও দেশেরপত্রের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক রুফায়দাহ পন্নী। এরপর দেশেরপত্রের রাজশাহী বিভাগীয় ব্যুরো প্রধান মো: মনিরুয্যামান মনিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভার শুরুতে অতিথিদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়া হয়। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাংসদ মোঃ আব্দুল মালেক বলেন, ‘যারা ধর্মব্যাবসা, ধর্ম নিয়ে অপ-রাজনীতি করে তাদেরকে যে কোন মূল্যে প্রতিহত করা হবে। এরা ইসলাম, দেশ ও জাতির শত্র“। দৈনিক দেশেরপত্রের সাথে মিলে মিশে কাজ করে আমরা এক জাতি এক দেশ ঐক্যবদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তুলে ঐসব ধর্ম ব্যবসায়ীদের প্রতিহত করব।’ তিনি এমামুয্যামানের আদর্শে প্রকৃত এসলাম প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে স্রষ্টার দেয়া জীবন ব্যবস্থার উপরে জীবন ও রাষ্ট্র পরিচালনার মাধ্যমে সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠা করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে দেশেরপত্রের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক রুফায়দাহ পন্নী বলেন, ‘আমার বাবা মহামান্য এমামুয্যামান প্রমাণ করে দিয়েছেন ধর্মব্যবসায়ী এবং যারা ধর্মের নামে রাজনীতি করে তারা প্রকৃত পক্ষ্যে এসলামে নেই, বরং তারা এসলামের মহাশত্র“। আজ মাদ্রাসায়, মক্তবে, ওয়াজ মাহফিলে ধর্মব্যবসায়ীরা যে এসলাম শেখাচ্ছে তা আল্লাহ রসুলের প্রকৃত এসলাম নয়। এই ধর্মব্যবসায়ীরাই আমাদেরকে নানা মজহাব, ফেরকায় খণ্ড-বিখণ্ড করে ফেলেছে, আমাদের ঐক্য সম্পূর্ণরূপে বিনষ্ট করেছে। আমাদের লক্ষ্য হলো এই ধর্মব্যবসায়ীদের মুখোশ উন্মোচন করে তাদের লুকিয়ে থাকা কুৎসিত রূপ সাধারণ মানুষের সামনে তুলে ধরা এবং বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষকে ধর্মব্যবসা ও ধর্ম নিয়ে অপ-রাজনীতিসহ সকল মিথ্যার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ করা।’
মুক্তিযোদ্ধা এবি এম ফারুক বলেন, ‘যামানার এমামের অনুপ্রেরণায় উজ্জীবিত হয়ে দেশেরপত্র যে মহাসত্যের আহ্বান করেছে সেই আহবানে সাড়া দিয়ে তরুণদের কর্তব্য হয়ে দাঁড়িয়েছে ন্যায়, সুবিচার প্রতিষ্ঠায় নতুন একটি যুদ্ধ শুরু করা।’
এ সময়ে আরো বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক শাকিল আহম্মেদ বাদল, প্রচার সম্পাদক এসএম জহুরুল ইসলাম, উপ-প্রচার সম্পাদক শ্রী দিলিপ কুমার চক্রবর্র্তী, বীর মুক্তিযোদ্ধা মঈনুল হক মুকুল প্রমুখ। অনুষ্ঠানে উপস্থিত সহস্রাধিক অতিথি মুহুর্মূহু করতালির মাধ্যমে দেশেরপত্রের উদ্যোগের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেন।মুক্তিযোদ্ধা এবি এম ফারুক বলেন, ‘যামানার এমামের অনুপ্রেরণায় উজ্জীবিত হয়ে হয়ে দেশেরপত্র যে মহাসত্যের আহ্বান করেছে সেই আহবানে সাড়া দিয়ে তরুণদের কর্তব্য হয়ে দাঁড়িয়েছে ন্যায়, সুবিচার প্রতিষ্ঠায় নতুন একটি যুদ্ধ শুরু করা।’
এ সময়ে আরো বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক শাকিল আহম্মেদ বাদল, প্রচার সম্পাদক এসএম জহুরুল ইসলাম, উপ-প্রচার সম্পাদক শ্রী দিলিপ কুমার চক্রবর্র্তী, বীর মুক্তিযোদ্ধা মঈনুল হক মুকুল প্রমুখ। অনুষ্ঠানে উপস্থিত সহস্রাধিক অতিথি মুহুর্মূহু করতালির মাধ্যমে দেশেরপত্রের উদ্যোগের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেন।

জনপ্রিয় পোস্টসমূহ