সূত্রাপুরে হেযবুত তওহীদের প্রতিনিধি সম্মেলন


মানবজাতি বহু পথ অতিক্রম করে বর্তমান সময়ে এসে উপনীত হয়েছে। এই দীর্ঘ পথপরিক্রমায় অর্জনগুলোর পাশাপাশি হারানোর তালিকাও বেশ লম্বা। জ্ঞান-বিজ্ঞান, তথ্য-প্রযুক্তি, কৃষি, যোগাযোগ, জীবনযাত্রার মান ইত্যাদি ক্ষেত্রে মানবজাতি বর্তমান সময়ে উন্নতির সর্বোচ্চ চূড়ায় অবস্থান করছে। পাশাপাশি ঐক্যহীনতা, অন্যায়-অবিচার, দুর্নীতি, যুদ্ধ-রক্তপাত, সংঘাত-সংঘর্ষ, নীতি-নৈতিকতা ও আদর্শহীনতা ইত্যাদিতেও মানবজাতি এখন ভয়ঙ্করতম সঙ্কটকাল অতিক্রম করছে। এই সঙ্কট থেকে মুক্তির একমাত্র পথ হলো- স্রষ্টার সার্বভৌমত্বকে মানবজাতির জীবনের সর্বক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠা ও প্রয়োগ করা। সেজন্য সবার আগে প্রয়োজন স্রষ্টার সার্বভৌমত্বের ভিত্তিতে গড়ে ওঠা পথে জাতিগত ঐক্য। সেই ঐক্যের আহ্বানই পৃথিবীবাসীকে জানিয়ে যাচ্ছে মানবতার কল্যাণে নিবেদিত আন্দোলন হেযবুত তওহীদ।
গতকাল রাজধানীর সূত্রাপুরের জহির রায়হান সাংস্কৃতি কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হেযবুত তওহীদের প্রতিনিধি সম্মেলনে এসব কথা বলেন বক্তারা। এদিন সকালে শুরু হয়ে দিনব্যাপী চলা এ সম্মেলনে সারাদেশ থেকে সংগঠনটির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হেযবুত তওহীদের সর্বোচ্চ নেতা ও এমাম হোসাইন মোহাম্মদ সেলিম। বিশেষ অতিথি ছিলেন, হেযবুত তওহীদের সাধারণ সম্পাদক মো. মশিউর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শফিকুল আলম উখবাহ, মো. আলী হোসেন, এনামুল হক বাপ্পা, মো. নিজাম উদ্দীন, কেন্দ্রীয় নারী বিষয়ক সম্পাদক রুফায়দাহ পন্নী, প্রধান উপদেষ্টা খাদিজা খাতুন, প্রচার সম্পাদক এস এম সামসুল হুদা, সাহিত্য সম্পাদক রিয়াদুল হাসান, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক উম্মুত তিজান মাখদুমা পন্নী। এছাড়াও কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদকগণ ও বিভিন্ন জেলা কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, পৃথিবীতে আজ চলছে ‘মাইট ইজ রাইট’-এর শাসন। ন্যায়ের উপর অন্যায়ের বিজয়ে, সরলের উপর ধূর্তের বঞ্চনায়, দুর্বলের উপর সবলের অত্যাচার-শোষণে, শাসিতের উপর শাসকের অবিচারে পৃথিবী আজ যেন বাসের অযোগ্য। দারিদ্র্য, ক্ষুধা, যুদ্ধ, রক্তপাত ইত্যাদিতে পৃথিবী এখন পরিপূর্ণ। নিরপরাধ শিশুর রক্তে পৃথিবীর মাটি আজ ভেজা। চারদিক থেকে আর্তমানবতার হাহাকার উঠছে- শান্তি চাই, শান্তি চাই। কিন্তু সেই শান্তির দেখা মিলছে না। মানুষ একটার পর একটা জীবনব্যবস্থা পরিবর্তন করেছে। বিভিন্ন বাদ-মতবাদ, ইজম, ক্রেসি, তন্ত্র ইত্যাদি নিজেদের সমাজে প্রতিষ্ঠা করেছে; কিন্তু কাঙ্ক্ষিত শান্তির দেখা মেলেনি। এর কারণ একটাই, তা হলো- স্রষ্টার সার্বভৌমত্বকে বাদ দিয়ে দাজ্জালীয় বস্তুবাদী সভ্যতার সার্বভৌমত্বের অনুসরণ করা। হোসাইন মোহাম্মদ সেলিম বলেন, হেযবুত তওহীদ সমগ্র মানবজাতিকে স্রষ্টার সার্বভৌমত্বের পথের দিকেই আহ্বান করছে। যে সার্বভৌমত্বকে মেনে নেওয়ার ফলে শেষ নবীর সময়ে মাত্র কয়েক বছরের ব্যবধানে তৎকালীন আরব জাতি পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ জাতির আসনে আসীন হয়েছিল। জাতির এই সঙ্কটময় সময়েও আমাদের সামনে একইরকম সুযোগ রয়েছে। এই দুরবস্থা কাটাতে আমাদের সমানে এখন একটাই পথ, সেটা হলো- স্রষ্টার সার্বভৌমত্বকে মেনে নেয়া। সেই পথের দিকেই আহ্বান করছে হেযবুত তওহীদ।
তিনি আরও বলেন, আজ যখন হেযবুত তওহীদ সারাদেশে মানবতার কল্যাণে কাজ করছে তখন এক শ্রেণির স্বার্থান্বেষী ধর্মব্যবসায়ী আমাদের বিরোধীতায় লিপ্ত হয়েছে। যেখানে তাদের এগিয়ে আসার কথা ছিল, তারা সেটা না করে বরং মানবতার কল্যাণে এগিয়ে আসা নিবেদিতপ্রাণ একদল মানুষকে নানাভাবে প্রতিবন্ধকতার মুখোমুখি করছে। তারা নিজেরাও ঐক্যবদ্ধ নয় এবং জাতীয় ঐক্যের প্রশ্নে জাতিকেও তারা ঐক্যবদ্ধ হতে দিবে না। তবে এতে মনক্ষুণ্ন হওয়ার কিছু নেই। ¯্রষ্টা তার সত্যকে উদ্ভাসিত করবেনই। হেযবুত তওহীদের বিজয় সুনিশ্চিত।

অনুষ্ঠানের ভিডিও চিত্র

লেখাটি শেয়ার করুন আপনার প্রিয়জনের সাথে

Share on email
Email
Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on skype
Skype
Share on whatsapp
WhatsApp
জনপ্রিয় পোস্টসমূহ