সত্য জীবন ব্যবস্থা গ্রহণ করা ছাড়া সমাজ শান্তিপূর্ণ হবে না

 -মোহাম্মদ মসীহ উর রহমান, আমীর, হেযবুত তওহীদ

বগুড়ায় এক কর্মী সমাবেশে হেযবুত তওহীদের আমীর জনাব মসীহ উর রহমান বলেন, সত্য জীবনব্যবস্থা গ্রহণ করে নেওয়া ছাড়া যতভাবেই চেষ্টা করা হোক সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠা সম্ভব নয়। তিনি আরও বলেন, আমাদের তাকাতে হবে রসুলাল্লাহর আগমনের সময়টির দিকে। বর্তমানে আমরা যে অবস্থায় বসবাস করছি, এর মতই চরম খারাপ অবস্থা তাদের হয়েছিল। বংশানুক্রমে খুন, লুটপাট, যুদ্ধ-বিগ্রহ, প্রতিশোধ-প্রতিহিংসায় লিপ্ত হয়ে তাদের অবস্থা এমন হয়েছিল যে পৃথিবীর অন্যান্য এলাকার মানুষ তাদেরকে ঘৃণার পাত্র হিসেবে দেখত। জাতি হিসেবে তাদের কোন মান-সম্মান ছিল না। তারা পৃথিবীতে একটি চরম দারিদ্রপীড়িত এবং অবজ্ঞাত জাতি হিসেবে পরিগণিত ছিল। সেই যুগটাকেই বলা হয় আইয়ামে জাহেলিয়াহ বা অন্ধকার যুগ। এই পশ্চাদপদ জাতিটাকেই অতি অল্পদিনের ব্যবধানে রসুলাল্লাহ পৃথিবীর বুকে একটি শ্রেষ্ঠ জাতি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করে যান। রসুলের আদর্শে গড়া তার উম্মাহ পরবর্তী ৬০/৭০ বছরের মধ্যে পৃথিবীতে শিক্ষা দীক্ষায়, জ্ঞানে বিজ্ঞানে, সামরিক শক্তিতে অর্থাৎ সর্বদিক দিয়ে একটি শ্রেষ্ঠ জাতিতে পরিণত হন। প্রশ্ন হচ্ছে:-
প্রথমতঃ রসুলাল্লাহ কিসের মাধ্যমে এই অভূতপূর্ব পরিবর্তন সাধন করেছিলেন? এর উত্তর হচ্ছে রসুলের উপর আল্লাহ প্রদত্ত সত্যদীন কায়েম করার মাধ্যমেই এই পরিবর্তন এসেছিল। আল্লাহর দেওয়া ঐ জীবন ব্যবস্থা অর্থাৎ সিস্টেমটি প্রয়োগ করার ফলেই আরবের ঐ আত্মকলহে লিপ্ত জাতির সদস্যরা পরবর্তীতে এক একজন সোনার মানুষে রূপান্তরিত হয়ে যান। তাই সুন্দর ও শান্তিময় পৃথিবী গড়তে সেই সত্য জীবনব্যবস্থা প্রয়োগ অপরিহার্য।
দ্বিতীয়তঃ বর্তমানে প্রচলিত ইসলামটি আল্লাহ রসুলের সেই প্রকৃত ইসলাম কি না? এর উত্তর হচ্ছে, বর্তমানে পৃথিবীতে ইসলাম নামক যে ধর্মটি চালু আছে সেটি আল্লাহ ও রসুলের প্রকৃত ইসলাম নয়। এই জাতিটি নিজেদেরকে মুসলিম বোলে দাবি করে, কিন্তু এরা প্রকৃতপক্ষে মুসলিম ও মো’মেন নয়। বিগত তেরশত বছরে ক্রমাগত বিকৃত হতে হতে সে ইসলাম বর্তমানে ঠিক এর বিপরীত একটি ইসলামে রূপান্তরিত হয়ে গেছে। বাহ্যিক দিক থেকে দেখতে এই ইসলাম আল্লাহ রসুলের ইসলামের মত হলেও চরিত্রে, আত্মায় ঠিক এর বিপরীত। অর্থাৎ শেষ রসুল আনীত প্রকৃত ইসলাম মানুষকে দিয়েছিল সর্বরকম মুক্তি ও স্বাধীনতা, নির্মূল করেছিল সমস্ত অন্যায়-অবিচার, সামাজিকভাবে দিয়েছিল পরম নিরাপত্তা, অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে দূর করেছিল বৈষম্য। কিন্তু বর্তমানে সে ইসলাম আর আমাদের মাঝে নেই। ধর্ম ব্যবসায়ী ও অতি পণ্ডিতদের কবলে পড়ে ইসলাম আজ নামাজ রোজাসর্বস্ব অন্যান্য ধর্মের মত একটি ধর্মে পরিণত হয়ে গেছে। পাশাপাশি পুরোহিতদের ন্যায় কথিত আলেম মোল্লারা একে জীবিকা নির্বাহের একটি উত্তম হাতিয়ারে পরিণত করেছে। সর্বশেষ ব্রিটিশদের হাতে সামরিকভাবে পরাজিত হওয়ার পর তাদের তৈরি মাদ্রাসা শিক্ষার মাধ্যমে তারা এই জাতির মন মগজে এক মৃত ইসলাম গেড়ে দিয়েছে এবং এই বিকৃত ইসলামের আলেমরা সেই ইসলামই বিক্রি করে খাচ্ছে, আলেমরা অন্যায়ের বিরুদ্ধে কোনো ভূমিকা রাখতে পারছেন না। এখন এই অশান্তিময় পরিস্থিতি থেকে উদ্ধার পেতে হলে আমাদের সত্যদীন গ্রহণ করতে হবে এবং সকল অন্যায়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে।

লেখাটি শেয়ার করুন আপনার প্রিয়জনের সাথে

Share on email
Email
Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on skype
Skype
Share on whatsapp
WhatsApp
জনপ্রিয় পোস্টসমূহ