বরিশালে হেযবুত তওহীদের কর্মী সম্মেলন অনুষ্ঠিত

জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে চলমান কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বরিশালে হেযবুত তওহীদের কর্মী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বিকেলে বরিশাল শহরের প্রাণকেন্দ্র অশ্বিনী কুমার টাউন হলে এ কর্মী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। বরিশাল জেলা হেযবুত তওহীদের সভাপতি রুহুল আমিন মৃধার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে পধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন হেযবুত তওহীদের এমাম হোসাইন মোহাম্মদ সেলিম।
হেযবুত তওহীদের এমাম হোসাইন মোহাম্মদ সেলিম তাঁর বক্তব্যে মুসলিম জাতির বর্তমান দুর্দশার কথা তুলে ধরে বলেন, এ দুর্দশা থেকে মুক্তি পেতে হলে মুসলিমদেরকে আবার ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ইসলামের প্রকৃত শিক্ষা তথা মানবতার পক্ষে, ন্যায়ের পক্ষে, হকের পক্ষে যদি জাতি আবার ঐক্যবদ্ধ হতে পারে, তাহলে তারা আবার পৃথিবীর শ্রেষ্ঠত্বের আসনে আসীন হতে পারবে। জঙ্গিবাদকে বর্তমান বিশ্বের এক নম্বর সংকট বলে অভিহিত করে তিনি বলেন, জঙ্গিবাদ গোটা বিশ্বকে অস্থিতিশীলতার দিকে ঠেলে দিয়েছে। মুসলিম জাতিকে বিনাশ করার জন্য পশ্চিমারা জঙ্গিবাদ নামক এই ‘বিষবৃক্ষের’ জন্ম দিয়েছে বলেও এ সময় তিনি মন্তব্য করেন।

হেযবুত তওহীদের এমাম আরো বলেন, সকল নবী রাসুল এই তওহীদ নিয়েই এসেছেন, কালক্রমে মানুষ বিভিন্ন বর্ণ-গোত্র-সম্প্রদায়ে বিভক্ত হয়ে পড়ে। আল্লাহর শেষ রসুল মোহাম্মদ (সা.) এসে তাদেরকে পুনরায় তওহীদে ঐক্যবদ্ধ করেন। কিন্তু আজ আমরা আবার তওহীদের ঐক্যবন্ধনী থেকে সরে বিভন্ন দল-মত-ফেরকা-মাজহাব-তরিকায় বিভক্ত হয়ে গেছি। ফলে আমরা আমাদের শক্তি হারিয়ে পৃথিবীময় লাঞ্ছিত হচ্ছি। হেযবুত তওহীদ আবারো মুসলিম জাতিকে তওহীদের ভিত্তিতে ঐক্যবদ্ধ করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
এসময় হোসাইন মোহাম্মদ সেলিম আরো বলেন, আাল্লাহর রসুল মক্কা বিজয়ের পর বেলালকে ক্বাবার ছাদে উঠালেন। যেই বেলালকে কোরাইশরা মানুষ মনে করত না। আল্লাহর রসুল কি ভাবলেন না- কোরাইশরা এই বিষয়কে কীভাবে নেবে? ভেবেছেন, কিন্তু তিনি অনর্থক সেন্টিমেন্টের তোয়াক্কা করলেন না। সত্যের নবী, হক্বের নবী, তিনি সত্য নিয়ে আবির্ভূত হয়েছেন, মিথ্যার মস্তকে আঘাত হানার জন্য। যেটা আল্লাহ পবিত্র কুরআনে বলেছেন। “আমি সত্যকে প্রকাশ করি, অতঃপর মিথ্যার মস্তকে আঘাত হানি।” আল্লাহ পবিত্র কুরআনে বলেছেন। কাজেই তিনি সমস্ত মিথ্যাকে ধূলিসাৎ করার জন্য সত্যের আঘাত হেনেছেন। অনর্থক তিনি কারো তোয়াজ করেন নি। এইটা একটা নীতি, যারা আজকে আমাদের চিন্তাশীল আছেন বা যারা সত্যি সত্যি আল্লাহ রসুলকে ভালোবাসেন এবং প্রকৃত ইসলামের উত্থান চান তাদেরকে রসুলের এই নীতিটি বুঝতে হবে। সমাজে ধর্মের নামে বহু অধর্ম চালু আছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, সমাজে চলমান ধর্মের নামে সমস্ত অধর্ম, যত বড়ই হোক এটাকে আর লালন-পালন করার কোনো সুযোগ নাই। ইসলামে নারী স্বাধীনতা স্বরূপ তুলে ধরে তিনি বলেন, ইসলাম নারীকে মুক্তি দিয়েছে। আর আমাদের ধর্মব্যবসায়ী একটি শ্রেণি নারীকে অন্ধকার প্রকোষ্ঠে বন্দি করতে চেয়েছে। ইসলাম শালীনতার মধ্যে থেকে সকল কাজে পুরুষের পাশাপাশি অংগ্রহণের অধিকার নারীকে দিয়েছে বলে এ সময় মন্তব্য করেন তিনি।
কর্মী সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন হেযবুত তওহীদের সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ অনলাইন টেলিভিশন এসোসিয়েশনের সভাপতি ও জেটিভি অনলাইনের চেয়ারম্যান মো. মশিউর রহমান, হেযবুত তওহীদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আলী হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক ডা: মাহবুব আলম মাহফুজ, প্রচার সম্পাদক এস এম সামসুল হুদা, সাহিত্য সম্পাদক মো. রিয়াদুল হাসান প্রমুখ। হেযবুত তওহীদের স্থানীয় নেতা-কর্মীদের উপস্থিতিতে এ সময় অনুষ্ঠানস্থল কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে উঠে।

লেখাটি শেয়ার করুন আপনার প্রিয়জনের সাথে

Share on email
Email
Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on skype
Skype
Share on whatsapp
WhatsApp
জনপ্রিয় পোস্টসমূহ