দেশেরপত্রের চট্টগ্রাম ব্যুরো অফিস উদ্বোধন করলেন ভূমি প্রতিমন্ত্রী

গতকাল বিকেলে দৈনিক দেশেরপত্রের চট্টগ্রাম বিভাগীয় ব্যুরো অফিস উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিধির বক্তব্য রাখছেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী এমপি।
০৩ এপ্রিল ২০১৪ বিকেলে দৈনিক দেশেরপত্রের চট্টগ্রাম বিভাগীয় ব্যুরো অফিস উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিধির বক্তব্য রাখছেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী এমপি।

রাজনৈতিক বিভক্তিতে দেশ ও জাতি যখন চরম ঐক্যহীন, রাজনৈতিক দলগুলো যখন মানুষের কষ্ট বৃদ্ধির প্রতিযোগিতায় লিপ্ত, তারা প্রতিনিয়ত পরস্পর দোষারোপের মাধ্যমে দূরত্ব বাড়িয়ে চলছে, তাদের সৃষ্ট সহিংসতায় যখন সাধারণ মানুষ নির্মমতার শিকার হয়ে হতাশাগ্রস্ত, গৃহযুদ্ধ যখন হাতছানি দিচ্ছে, ঠিক সেই মুহূর্তে যামানার এমাম মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নীর আদর্শকে ধারণ করে দেশের ষোলকোটি মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করে শান্তি প্রতিষ্ঠার শপথ নিয়ে মাঠে নামে দৈনিক দেশেরপত্র। দেশেরপত্রের মূলশক্তি একদল আত্মনিবেদিত অকুতোভয় ও উদ্যমী তরুণ পুরুষ ও নারী। যে বিষাক্ত মতবাদ ও ধর্মব্যবসায় জাতিকে ঐক্যহীন করে রেখেছে সেগুলির মুখোস উন্মোচন করে দিতে দেশেরপত্র কয়েকটি তথ্যচিত্র নির্মাণ করে তা প্রজেক্টরের মাধ্যমে বড় পর্দায় দেশের আনাচে কানাচে প্রায় পনের সহস্রাধিকেরও বেশিবার প্রদর্শন করে। এই তথ্যচিত্রগুলি দেখে উদ্বেলিত সর্বসাধারণ সকল অপরাজনীতি ও ধর্মব্যবসায়ীদের বর্জন করার শপথে ঐক্যবদ্ধ হয়। লক্ষ লক্ষ মানুষ দুই হাত তুলে তাদের সমর্থন জ্ঞাপন করেন। এই কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে গিয়ে খুব অল্প সময়ে দেশেরপত্র আপামর মানুষের বিশ্বস্ত বন্ধু হিসেবে গৃহীত হয়। সাধারণ মানুষের এই ঐক্যকে আরও মজবুত করার জন্য এবং তাদের সান্নিধ্যে থাকার লক্ষ্যে দেশেরপত্র কর্তৃপক্ষ দেশজুড়ে কার্যালয় স্থাপন করছে। ইতোমধ্যেই দেশের বেশ কয়েকটি বিভাগীয় শহর ও জেলা-উপজেলায় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে দেশেরপত্রের আঞ্চলিক কার্যালয়। গতকাল চট্টগ্রাম পাহাড়তলী ডিটি রোডে দেশেরপত্রের বিভাগীয় কার্যালয় উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী এম.পি। এছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগরীর আওয়ামী লীগ উপ প্রচার সম্পাদক শহিদুল আলম, চট্টগ্রাম মহানগরীর কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য ও বন্দর থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি মো: নুরুল আলম ,আকবর শাহ থানা আওয়ামিলীগ সাধারণ সম্পাদক কাজী আলতাফ হোসেন, চট্টগ্রাম মহানগরীর ছাত্রলীগ আহ্বায়ক আতিকুর রহমান আতিক, দৈনিক দেশেরপত্রের সিলেট বিভাগীয় ব্যুরো প্রধান নুরুল আবছার সোহাগ। উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন দৈনিক দেশেরপত্রের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক রুফায়দাহ পন্নী।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভূমি প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘দেশেরপত্র যে মহতী উদ্যোগ নিয়েছে আমি তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই এবং তার সাথে একাত্মতা ঘোষণা করছি, সকল প্রকার সহযোগিতার আশ্বাস দিচ্ছি। শুধু আপনারা বলবেন আমাকে কী করতে হবে। আমার কাছে যখন এই অনুষ্ঠানে আসার দাওয়াত দেওয়া হয় তখন আমি ব্যস্ততার কথা বলেছিলাম, কিন্তু যখন আমি তাদের বিষয়ে জানলাম, পুরো বিষয়টি উপলব্ধি করতে পারলাম তখন আমি দেখলাম এটি আমার নৈতিক দায়িত্ব, কাজেই আমি সম্মতি দিলাম। আপনারা আমাদের চলার সাথী, আমাদের সহযোদ্ধা। এই যুদ্ধে সাথী যদি সাথীর পাশে না দাঁড়ায় তবে সেটা অন্যায় হবে। আপনারা সঠিক সময়ে সঠিক কাজটি হাতে নিয়েছেন, বাংলাদেশ যেমন এগিয়ে যাচ্ছে তেমনি আপনারাও এগিয়ে যান, আমরা আপনাদের সাথে আছি এনশা’ল্লাহ।’ প্রতিমন্ত্রীর এই ঘোষণাকে মুহুর্মুহু করতালির মাধ্যমে অভিনন্দিত করেন উপস্থিত অতিথিবৃন্দ।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক রুফায়দাহ পন্নী তার বক্তব্যে বলেন, ‘ধর্ম হচ্ছে সকল ন্যায়ের উৎস, ধর্মের উপর অধিকাংশ মানুষের অগাধ আস্থা ও বিশ্বাস। সেই ধর্মকে যখন অপকর্মের হাতিয়ার বানানো হয় তখন ধর্ম থেকেই মানুষের আস্থা হারিয়ে যায়, ধর্মের প্রতি মানুষ শ্রদ্ধা হারিয়ে ফলে সমাজ থেকে ন্যায়-নীতি, মানবতা সব কিছুই হারিয়ে যেতে থাকে।’ তিনি অন্যায়ের বিরুদ্ধে যামানার এমাম ও তাঁর অনুসারীদের সুদৃঢ় অবস্থানের কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘যারা ব্যক্তিস্বার্থে ধর্মকে ব্যবহার করে মানবজাতির অপূরণীয় এই ক্ষতি সাধন করছে আমার বাবা যামানার এমাম মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নী তাদের মুখোস উন্মোচন করে দিয়েছেন। এজন্য তাঁর বিরুদ্ধে ধর্মজীবীরা বহু মিথ্যাচার করেছে, তাঁর বিরুদ্ধে বহু মিটিং মিছিল মিথ্যা মামলাও করেছে, কিন্তু তিনি এক মুহূর্তের জন্যও সত্যপথের এই সংগ্রাম থেকে বিরত হন নি।’ ধর্মব্যবসায়ীদের অভিশাপ থেকে দেশ ও জাতিকে মুক্ত করার ক্ষেত্রে দেশেপত্রের ভূমিকা তুলে ধরে বলেন, ‘আমরা দৈনিক দেশেরপত্রের মাধ্যমে চেষ্টা করছি মানবজাতির সামনে সেই এসলামটি তুলে ধরতে যে এসলাম ১৪০০ বছর আগে আল্লাহ তাঁর শেষ রসুল মোহাম্মদ (দ:) এর উপর নাজেল করেছিলেন। সেই এসলাম পৃথিবীর যে অংশে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল সেখানে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল অনাবিল শান্তি, মানুষের জীবন এবং সম্পদের পূর্ণ নিরাপত্তা। সেই এসলাম আর আজকে ধর্মব্যবসায়ী মোল্লা-ধর্মজীবীদের কাছে যে এসলাম আছে এ দু’টি কি এক এসলাম? নিশ্চয় নয়, ফলেই তার প্রমাণ। আর আজকের বিকৃত এসলাম থেকেই ধর্মজীবীরা জঙ্গিবাদ নামক সন্ত্রাসকে বৈধতা দান করছে। কোর’আন হাদীসের ভুল ব্যাখ্যা করে জঙ্গিবাদ নামকে অসত্যের সৃষ্টি করেছে। আমরা দৈনিক দেশেরপত্রের মাধ্যমে চেষ্টা করছি এই ধর্মব্যবসা ও জঙ্গিবাদের অবৈধতা, নিষিদ্ধতা কোর’আন হাদীসের দ্বারা মানুষের সামনে প্রমাণ করে দিতে যেন মানুষ আর তাদের অপপ্রচারে প্রভাবিত হয়ে দেশ ও জাতির জন্য ক্ষতিকর কোন কর্মকাণ্ডে অংশ না নেয়।’
দেশেরপত্রের সিলেট বিভাগীয় ব্যুরো প্রধান নুরুল আবছার সোহাগ বলেন, ‘দেশের নাজুক ও ঐক্যহীন অবস্থায় যখন আমরা কাজ শুরু করি তখন দেখতে পাই, দেশের সব সমস্যার মূলে রয়েছে ধর্মকে অপরাজনীতির হাতিয়ার বানানো এবং একশ্রেণির ধর্মজীবী মোল্লাদের ধর্মব্যবসা, মিথ্যা ফতোয়া ও অপপ্রচার। তাদের এ অপপ্রচারে বিভ্রান্ত হয়ে সাধারণ মানুষ পথ খুঁজে পাচ্ছিল না। অপরদিকে রাজনৈতিক দলগুলোও তাদের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে অনৈক্য ও হানাহানিতে লিপ্ত হয়ে প্রায় গৃহযুদ্ধের দ্বারপ্রান্তে উপস্থিত হয়। দেশের এ নাজুক অবস্থায় জাতিকে সঠিক পথনির্দেশনা দিয়ে ঐক্যবদ্ধ করতে দায়িত্ব গ্রহণ করে দেশেরপত্র।’ তিনি আরো বলেন, ‘আমরা যামানার এমামের আদর্শের প্রেরণায় উজ্জীবিত হয়ে নিজেদের জীবন সম্পদ ব্যয় করে মানবতার কল্যাণে সম্পূর্ণ পার্থিব স্বার্থের উর্ধে উঠে কাজ করে যাচ্ছি। কিন্তু এ কাজ আমাদের একার কাজ নয়। রাষ্ট্রের স্থিতিশীলতা সর্বোপরি অস্তিত্ব রক্ষায় এ ব্যাপারে রাষ্ট্রকেই এগিয়ে আসতে হবে।’
বিভাগীয় কার্যালয় উদ্বোধনী অনুষ্ঠান উপলক্ষে কার্যালয়ের সামনে যামানার এমাম মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নী লিখিত বিভিন্ন বই, প্রামাণ্যচিত্র ও দেশেরপত্রের কর্তৃক প্রকাশিত বিভিন্ন সাময়িকী প্রদর্শনীর স্টল স্থাপন করা হয়। সেখান থেকে অনুষ্ঠানে আগত অতিথিবৃন্দ বই, সিডি ক্রয় করেন।

জনপ্রিয় পোস্টসমূহ