কুষ্টিয়ায় জঙ্গিবাদ দমনে আলোচনা সভা

kustia
বক্তব্য রাখছেন মাহবুব আলী, সাব এডিটর, দৈনিক দেশেরপত্র; (বাম থেকে) মো. হাফিজুর রহমান হেলাল, সহ-সভাপতি, জেলা বিএনপি, কুষ্টিয়া; আব্দুর রশীদ চৌধুরী, সম্পাদক, দৈনিক বাংলাদেশ বার্তা, মো. গোলাম মহসিন, সভাপতি, কুষ্টিয়া জেলা জাসদ; অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি, মো. জাহিদ হোসেন জাফর, প্রশাসক জেলা পরিষদ, কুষ্টিয়া এবং মসিহ উর রহমান, উপদেষ্টা, দৈনিক দেশেরপত্র।

সত্য শ্বাস্বত, সনাতন, চিরন্তন। চিরকালই সত্য সবার কাক্ষিত বিষয়। সত্যের প্রদীপ যখনই আলোকচ্ছটা নিয়ে উদ্ভাসিত হয়, তখন যাবতীয় মিথ্যা ধরণী থেকে বিদায় নিতে থাকে। আজ দুনিয়ার যেদিকেই দৃষ্টি দেই না কেন, সর্বত্রই অন্যায়, অশান্তি রক্তপাত যেন এক মহামারী আকার ধারণ কোরেছে, সর্বত্রই মিথ্যার জয়-জয়কার। কিন্তু মিথ্যা দিয়ে তো আর সমাজে শান্তি আসতে পারে না, অন্যায় দিয়ে তো সুবিচার প্রতিষ্ঠিত হতে পারে না। তাই মানবজাতির অস্তিত্বের এই সংকটকালে প্রয়োজন হয়ে পড়েছে সত্যকে আরও একবার নতুন করে চেনার। সেই সত্যের বার্তা নিয়ে পৃথিবীময় শান্তি, সৌহার্দ্য ও আনন্দ ছড়িয়ে দিতে ঢাকা, লক্ষ্মীপুর, টাঙ্গাইল, জয়পুরহাট, পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও, রংপুর, লালমনিরহাট ও কুড়িগ্রাম, সিলেট জেলার পর গত ২৩ নভেম্বর ২০১৩  শনিবার লালনের দেশ খ্যাত কুষ্টিয়ার জেলা পরিষদ মিলনায়তনে ‘দৈনিক দেশেরপত্র’ ও ‘দৈনিক নিউজে’র যৌথ উদ্যোগে “জঙ্গিবাদ তথা যাবতীয় সন্ত্রাস দমনে আমাদের প্রস্তাবনা” এবং “অন্যায় অশান্তি দূরীকরণে সিস্টেম পরিবর্তনের বিকল্প নেই” শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
দেশেরপত্রের সাব এডিটর জনাব মাহবুব আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের প্রশাসক মুক্তিযোদ্ধা মোঃ জাহিদ হোসেন জাফর, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিতি ছিলেন দেশেরপত্রের উপদেষ্টা জনাব মসীহ উর রহমান, কুষ্টিয়া জেলা জাসদ সভাপতি মোঃ গোলাম মহসীন, কুষ্টিয়া প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি, দৈনিক আরশীনগরের সম্পাদক ও বাংলাদেশ রুরাল জার্নালিস্ট সোসাইটির চেয়ারম্যান রাশেদুল ইসলাম বিপ্লব, বিএনপির সহ-সভাপতি মোঃ হাফিজুর রহমান হেলাল, দৈনিক বাংলাদেশ বার্তার সম্পাদক আবদুর রশিদ চৌধুরী, কুষ্টিয়া সুগার মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আজিজুর রহমান, বাস মিনি বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ নুর হোসেন দুলাল, অধ্যক্ষ মোঃ মনজুর রেজা এনাম, কুষ্টিয়া মটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ স্মরণ, জেলা যুবলীগের আহবায়ক রবিউল হক ও বাংলাদেশ অনলাইন জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের কুষ্টিয়া জেলার সভাপতি ডাঃ হাবিবুর রহমান প্রমুখ।
উদ্বোধনী বক্তব্যে অনুষ্ঠানের সভাপতি মাহবুব আলী আমন্ত্রিত অতিথিদের স্বাগত জানিয়ে বলেন, সামাজিক অস্থিরতা, জঙ্গিবাদ, যুদ্ধ, হত্যা, খুন, মারামারি, হানাহানিতে ভরপুর হয়ে পৃথিবী আজ বসবাসের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। চলমান এই অন্যায়-অত্যাচার ও অশান্তি থেকে মুক্তির জন্যই দেশেরপত্র সারা দেশব্যাপী আলোচনা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সন্ত্রাস নির্মূলে যামানার এমাম জনাব মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নীর দেওয়া প্রস্তাবনা দেশবাসীর কাছে তুলে ধরছে।
অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি সাংবাদিক আবদুর রশিদ চৈৗধুরী বলেন, বর্তমান প্রক্রিয়ায় সন্ত্রাসবাদ দূর করা যাাচ্ছে না, সিস্টেম পরিবর্তন কোরলে হয়তো সন্ত্রাসবাদ দূর করা সম্ভব হবে। এই সিস্টেম পরিবর্তনের লক্ষ্যে দেশেরপত্র এগিয়ে এসেছে, তাই তাদেরকে ধন্যবাদ।
জাসদ সভাপতি গোলাম মহসীন বলেন, ধর্মকে অপব্যবহার করার যে প্রবণতা এবং ধনীদের শোষণ প্রক্রিয়া, এই সব কিছুর কবল থেকে আমাদেরকে বেরিয়ে আসতে হবে। ধর্মের প্রতি মানুষের অনুরাগ ভালবাসা আছে, কারণ এর থেকে মানুষ কাক্সিক্ষত সুখ লাভ করে। অথচ এই ধর্মের নেতারা নিজেদের নামের আগে আল্লামা সহ নানাবিধ উপাধী ব্যবহার করে নারীদেরকে তেঁতুলের সাথে তুলনা করে ঘরের মধ্যে আবদ্ধ করে রেখেছে। অথচ এসলাম নারীদেরকে কিছু সীমারেখা মেনে চলার মাধ্যমে সম্পূর্ণ স্বাধীনতা দিয়েছে। বিশেষ অতিথি রাশেদুল এসলাম বিপ্লব বলেন, ঢাকা থেকে প্রকাশিত দৈনিক দেশেরপত্র কুষ্টিয়াতে সবচেয়ে বেশি সরবরাহ হয়। তারা দৈনন্দিন খবরের সাথে বিশেষ একটি চেতনার প্রচার এবং ধর্মের আধুনিক রূপটাকে তুলে ধরার চেষ্টা কোরছে। অথচ এটা কোরতে তাঁদের অনেক ঘাত প্রতিঘাতের স্বীকার হোতে হোয়েছে। তিনি বলেন, সংবাদ পত্র একটি বড় এবং উন্নত মাধ্যম, যে মাধ্যমে খুব ভালভাবে প্রচার কোরতে পারে। কালমার্কস, মাওসেতুং, লেলিনও প্রথমে সংবাদপত্রের মধ্য দিয়েই উনাদের আদর্শ প্রচার কোরছেন। তিনি বলেন, এসলাম শান্তির ধর্ম হওয়া সত্ত্বেও একটি সার্থান্বেষী মহল পৃথিবীতে ব্যাপক অপপ্রচারণার মাধ্যমে মোসলেমদেরকে সন্ত্রাসী বানানোর হীন চেষ্টায় লিপ্ত। আমাদের সবাইকে সম্মিলিতভাবে তাদের মোকাবেলা কোরতে হবে।
হাফিজুর রহমান হেলাল বলেন, এসলাম কখনও জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাসবাদকে সমর্থন করে না। এটা শান্তির ধর্ম, মানবতার ধর্ম, অপরের ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল ধর্ম। এটার মাধ্যমে যারা ব্যবসা করে শুধু তাদেরকে প্রতিরোধ কোরলে সমাজে শান্তি আসবে না, বরং মিথ্যা, মাদক, সন্ত্রাস ও দুর্নীতির সাথে সম্পৃক্ত সবাইকে প্রতিরোধ কোরতে হবে। তবেই আমাদের এমাম জনাব মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নী সাহেবের কাক্সিক্ষত লক্ষ্যে পৌঁছানো যাবে।
মসীহ উর রহমান বলেন, আমাদের প্রত্রিকার শ্লোগান হোচ্ছে, মানবতার কল্যাণে সত্যের প্রকাশ, আমরা যামানার এমাম জনাব মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নীর আদর্শকে আমাদের পাথেয় হিসেবে গ্রহণ করে, আমাদের জীবন এবং সম্পদকে কোরবান করেছি সত্যকে প্রকাশ ও প্রতিষ্ঠা করার জন্য। তিনি ইউরোপোলের একটি উদ্ধৃতি তুলে ধরে বলেন, পৃথিবীতে সংঘটিত মোট সন্ত্রাসের ৯৯.৯৪ শতাংশ অন্য ধর্মাবলম্ব^ীদের দ্বারা সংঘটিত হলেও মোসলেমদেরকে সন্ত্রাসী অপবাদ দেওয়া হোচ্ছে। এটা এসলাম বিদ্বেষীদের একটা চক্রান্ত। কারণ তারা দেখতে পাচ্ছে যে, প্রকৃত এসলামের সভ্যতা বিকশিত হলে পৃথিবীতে ইহুদী খ্রিস্টান সভ্যতা তথা দাজ্জালের পতন হবে। বর্তমান পৃথিবীর অশান্তির বিষয়ে তিনি বলেন, শান্তির জন্য পৃথিবীতে বিভিন্ন জীবনব্যবস্থা প্রয়োগ করে দেখা হোয়েছে, কেউ শান্তি দিতে পারে নি, একমাত্র স্রষ্টার দেওয়া জীবনব্যবস্থাই শান্তি দিতে পারে। তাই আমাদেরকে আল্লাহর দেওয়া জীবনব্যবস্থার দিকে আবারও ফিরে যেতে হবে। যদি সত্যিই আপনারা শান্তি পেতে চান তবে আশা কোরবো আপনারা যামানার এমামের দেওয়া প্রস্তাবনাটি বিবেচনা করে দেখবেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাহিদ হোসেন জাফর বলেন, আমরা মনে করি পত্রিকার মধ্যে বস্তুনিষ্ঠ, সত্যনিষ্ঠ ও যুযোপযোগী কথা থাকবে, যাতে সমাজের সর্বরকম সন্ত্রাস দমনে এটা বলিষ্ঠ হাতিয়ার হতে পারে। প্রথমে দেশের পত্রকে অন্যান্য পত্রিকার মতো প্রথমে মনে কোরলেও এখানে এসে বুঝতে পেরেছি আসলে সেটা সাধারণ কোন পত্রিকা নয়। তিনি বলেন, যামানার এমামের সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ নির্মূলে যে প্রস্তাবনা আজ উপস্থাপিত হোয়েছে সেটা বর্তমানের প্রেক্ষাপটে অত্যন্ত গ্রহণযোগ্য।
অনুষ্ঠানের একপর্যায়ে মানবতার কল্যাণে সত্য প্রকাশে দেশেরপত্রের গৃহীত বিভিন্ন কার্যক্রম এবং যামানার এমাম জনাব মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নীর বর্ণাঢ্য কর্মজীবনের উল্লেখযোগ্য কিছু দিক নিয়ে নির্মিত সংক্ষিপ্ত ভিডিওচিত্র প্রদর্শন করা হয়। এ ছাড়াও ধর্মব্যবসায়ীরা কিভাবে ধর্মকে রুটি রুজির মাধ্যম বানিয়েছে, রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে এবং সন্ত্রাস করছে তা একটি ডকুমেন্টরীর মাধ্যমে অনুষ্ঠানে পরিস্কার ভাবে তুলে ধরা হয়। যামানার এমামের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন কোরে প্রখ্যাত সংগীত শিল্পী নাজমুল আলম শান্তর পরিবেশন করা গান অনুষ্ঠানকে আরও প্রাণবন্ত কোরে তুলে। সেমিনারস্থলের সম্মুখে যামানার এমাম জনাব মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নীর লেখা বিভিন্ন বইয়ের স্টল থেকে আমন্ত্রিত অতিথিদের অনেকেই তাদের পছন্দের বই সংগ্রহ করেন।kustia2

জনপ্রিয় পোস্টসমূহ