চুয়াডাঙ্গায় জঙ্গিবাদবিরোধী সর্বধর্মীয় সমাবেশ

গত ১১ আগষ্ট ২০১৬ চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গার মুন্সিগঞ্জ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের মাঠে একটি জঙ্গিবাদবিরোধী সর্বধর্মীয় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন হেযবুত তওহীদের এমাম হোসাইন মোহাম্মদ সেলিম। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ চুয়াডাঙ্গার সাংগঠনিক সম্পাদক শ্রী দেবেন্দ্রনাথ দোবে, জেহালা ইউনিয়ন, আলমডাঙ্গা, চুয়াডাঙ্গার আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক খাইরুল ইসলাম, হেযবুত তওহীদের সাহিত্য সম্পাদক মো. রিয়াদুল হাসান, হেযবুত তওহীদ রাজশাহী আঞ্চলিক আমীর মুনিরুজ্জামান, হেযবুত তওহীদ খুলন আঞ্চলিক আমীর শেখ মনিরুল ইসলাম, মুন্সিগঞ্জ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষক শ্রী শংকর কুমার পাত্র প্রমুখ।
প্রধান বক্তা হেযবুত তওহীদের এমাম হোসাইন মোহাম্মদ সেলিম বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির জন্য সরকার অনেক সভা সেমিনার করছেন। কিন্তু শত শত বছর ধরে হিন্দু-মুসলমানের হৃদয়ের মধ্যে যে দেওয়াল সৃষ্টি হয়েছে, সেই দেওয়াল ভাঙবেন কী দিয়ে? জঙ্গিরা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান পুরোহিতদের অনেককে হত্যা করে জান্নাতে যাওয়ার পথ খুঁজছেন। কিন্তু সেটা ভুল পথ, পথ ভুল হলে কখনোই গন্তব্যে পৌঁছানো যায় না। আজকে মানবতাহীন লেবাসসর্বস্ব যে ধর্মগুলো চালু আছে সেগুলো শেকড়বিহীন বৃক্ষের মতো, মৃত কাষ্ঠখ-। সকল ধর্মের মানুষকে একটি মূল সত্যের ভিত্তিতে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। সেটা হচ্ছে – আমরা সবাই এক স্রষ্টার সৃষ্টি, এক বাবা-মায়ের সন্তান। আমরা সবাই অন্যায়ের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হবো, সত্যকে ধারণ করব। তাহলে আমাদের নাম বাবু শংকর হোক কিংবা নুরুল ইসলাম হোক আমরা হবো প্রকৃত ধার্মিক।
হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ চুয়াডাঙ্গার সাংগঠনিক সম্পাদক শ্রী দেবেন্দ্রনা দোবে বলেন, ধর্ম হচ্ছে সেই সত্য যা হৃদয়ে ধারণ করলে একজন মানুষ অন্যের কল্যাণে নিজের জীবনকে উৎসর্গ করতে পারে। আজ যে ধর্ম মানুষকে হত্যা করার মন্ত্রণা দিচ্ছে সেটা প্রকৃত ধর্ম হতে পারে না। আমি জন্মসূত্রে বাংলাদেশের একজন নাগরিক, আমি সনাতনধর্মী হই বা মুসলিম হই আমার এই দেশে শান্তিতে বসবাস করার ও ন্যায় বিচার পাওয়ার অধিকার রয়েছে। সেই অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য হেযবুত তওহীদ সংগ্রম করছে। আমি দেশের এই ক্রান্তিকালে এমন একটি মহান উদ্যোগের সাে একাত্মতা ঘোষণা করছি। বৃষ্টিভেজা আবহাওয়াকে উপেক্ষা করেও শত শত মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতিতে প্রাণময় হয়ে উঠেছিল মুন্সিগঞ্জ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রাঙ্গণ।

লেখাটি শেয়ার করুন আপনার প্রিয়জনের সাথে

Share on email
Email
Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on skype
Skype
Share on whatsapp
WhatsApp
জনপ্রিয় পোস্টসমূহ